হৃদয় এভাবেই সাদিয়ার “ক্লাস” নেয়

হৃদয়,বরিশালের একটি কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র।গত দুই’টা বছর অনেক চেষ্টার পর এসএসসি পাশ করে সে।

জানা গেছে,হৃদয় পড়াশোনাতে তেমন ভালো না।তবে সে নিয়মিত কলেজে আসলেও ক্লাস ঠিক মতো করে না।কারণ তার যে গার্লফেন্ড আছে (সাদিয়া)। তাকে নিয়ে সাদিয়া রীতি মতো ঘুরতে যায়।কোন দিন হয়তো পার্কে,কোন দিন রেস্তরাঁতে,আবার কখনো কখনো দূরে কোথাও যায়।তাদের দিন গুলো এভাবে ভালোই চলছিল।

কিন্তু হঠাৎ সাদিয়া বড় ভাই কালা জুইসা এসব ঘটনা জেনে যায়।আর হৃদয়ও বুঝতে পারলো সাদিয়ার ভাই সব কিছু জেনে গেছে।তাই সে সাদিয়ার সাথে কিছু দিন যাবৎ বাহিরে যাওয়া বন্ধ করে দেয়।

হৃদয় আগে প্রতিমাসেই সাদিয়ার থেকে হাজার দু’য়েক করে টাকা নিয়ে তার বাসায় দিত।কিন্তু এখন সাদিয়ার ভাই সব কিছু জেনে যাবার কারণে সে আর সাদিয়ার থেকে টাকা নেয় না।তো এই মাসে হৃদয় তার বাসায় টাকা না পারায় তার বাবা তাকে জিজ্ঞাসা করেছে কিরে এমাসের টাকা কই?

উত্তরে হুদয় বলেছে আমি এমাসে আমার স্টুডেন্টেরর ঠিক মতো ক্লাস নিতে পারি নাই। তাই এ মাসের বেতন দেয় নাই।